যে লেখা ছাপতে পারিনি (দৈনিক বাংলা, ০৪ জানুয়ারি, ১৯৭২)

ভয় মহাভয়

-মাহমুদা খাতুন সিদ্দিকা

 

মহাভয়ে থরো থরো পৃথিবীর বুকে

অন্ধকার রাত্রি আরো কালো হয়ে যায়,

ত্রাসে জড়াইয়া আছে সকল অন্তর।

 

যেন ভয়ে স্তব্ধতার গহন কানন,

শ্রবণ-বিদীর্ণ করা আর্ত রব

গগনে গগনে ছেয়ে যায়।

 

অসহায় জনপদে শুনি হিংস্র অসুরের প্রমত্ত উল্লাস,

শতধারে মানুষের তাজা রক্তস্রোত বয়ে যায়।

 

মহাভয়ে মুদে আসে আকাশের চাঁদ

ভীত-ভ্রস্ত পক্ষীকুল পাখা ঝাপটায়-

নিষ্প্রদীপ, কারফিউ শ্বাসরুদ্ধ রাত-

দিনের নিস্পন্দ শব-

বধ্যভূমি সারাদেশ নির্মম হত্যালীলা

পৃথিবী শোনেনি কভু হায়।

 

মহাভয়ে মুহ্যমান – আমার সত্তা,

চারিপাশে শুনি শুধু কোটি মানবাত্মার ক্রন্দন;

হাহাকার দীর্ঘশ্বাসে ভারাক্রান্ত আকাশ বাতাশ।

 

কাল যারা ছিল মোর চারিপাশে আজ তারা নাই।

 

আজ তারা কোথা গেছে উর্ধ্বশ্বাসে পলায়নপর,

আজ তারা নাই – শুধু পড়ে আছে অগণিত শব।

 

শকুনির দল শুধু নীলাকাশে ওড়ে,

শৃশ্য মাঠ আজ নাই সে হলুদ কুসুম সুষমা,

শরতের জলতরা খাল-বিলে অগণিত লাশ।

 

হেথায় জন্মিবে শস্য, জন্মিবে মানুষ?

মানুষ যেখানে হল পশু হতে হেয়,

মানব-আত্মায় লেখা আছে কি সন্ধান?

উপরে কি সমাসীন আছে সেইজন?

সময়ে বিচার তার খড়গ সম উঠিবে জ্বলিয়া?

সে আগুনে পুড়ে যাবে ভয়- মহাভয়?

এ মাটিতে মানুষ কি পাবে সুবিচার?

ঢাকা – ২৮-৫-৭১

 

সহমর্মিতা

-জরিনা আখতার

 

১। বান্ধবীকে

শুনেছি তোমার ঘর নেই, এলোমেলো হয়ে গেছে সব;

প্রিয় টেবিল, পুস্তক কোথায় বিলীন হলো!

তোমার ঠিকানা লুকানো ছিল মাধবীর ঝাড়ে,

শ্বাপদের নখের মতো কোন নখ তোমার ঠিকানা তুলে নিল;

বিক্ষত মাধবীর ঝড়ে পড়ে আছে, তোমার ঠিকানা নেই।

শুনবে আমার কথা!

আমি ভালই আছি, আমি যে সইতে জানি;

গোপন বেদীতে নিশিদিন বেদনার নিধন-যজ্ঞ ঘটাই।

যদি বেঁচে থাক-

আমার নামের অস্ত্র ধারণ কোর নিউজ-পেপারের পৃষ্ঠা হতে।

 

২। দামাল কিশোর আজ

অশান্ত চোখ তুলে কি দেখছ কিশোর!

লাটিম-ঘুড়ির স্তূপ জমে আছে সবুজ ঘাসের বুকে;

কাদার ভেতর হতে চকচকে মাছেরা এসে লুটায় তোমার পায়ের কাছে।

কতো দিন ডেকেছি তোমাকে,

হে দামাল কিশোর পালিয়েছ হেসে।

আজ বড়ো কাছাকাছি এসে গেছ,

লাটিম-ঘুড়ি বর্জিত হাতে কি তুলেছ আজ!

অশান্ত চোখ হতে আমারই মতো কি ছড়াতে চাও!

এসো হে কিশোর, আজ বধ্য ভূমিতে দাঁড়াতে হবে।

যে লেখা ছাপতে পারিনি

পত্রিকার জন্য কৃতজ্ঞতা: Center for Bangladesh Genocide Research (CBGR) এবং International Crimes Strategy Forum (ICSF)।

Leave a Reply